Sunday, November 27, 2022

“ভালোবাসা” এই কথাটার উপরেই সঙ্গীত ভূবন…

– মোশারফ হোসেন মুন্না।

ভালোবাসা একটি মানবিক অনুভূতি এবং আবেগকেন্দ্রিক একটি অভিজ্ঞতা। বিশেষ কোন মানুষের জন্য স্নেহের শক্তিশালী বহিঃপ্রকাশ হচ্ছে ভালোবাসা। তবুও ভালোবাসাকে বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে ভাগ করা যায়। আবেগধর্মী ভালোবাসা সাধারণত গভীর হয়, বিশেষ কারো সাথে নিজের সকল মানবীয় অনুভূতি ভাগ করে নেওয়া, এমনকি শরীরের ব্যাপারটাও এই ধরনের ভালোবাসা থেকে পৃথক করা যায় না। এই ভালোবাসা নিয়ে বিখ্যাত ব্যাক্তিরা যে উক্তি গুলো করে থাকেন তার মধ্যে, “আনন্দকে ভাগ করলে দুটি জিনিস পাওয়া যায়; একটি হচ্ছে জ্ঞান এবং অপরটি হচ্ছে প্রেম। -এই সুন্দর কথাটি বলেছেন আমাদের বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

ভালোবাসার আরেক প্রকাশে সুইফট বলেন, “আমি চলে গেলে কেউ যদি আমার জন্য না কাদেঁ, তবে আমার অস্তিত্বের কোন মুল্য নেই। -এটা এক ধরনের ভালোবাসা।
আমি তোমাকে অসংখ্যভাবে ভালবেসেছি, অসংখ্যবার ভালবেসেছি, এক জীবনের পর অন্য জীবনেও ভালবেসেছি, বছরের পর বছর, সর্বদা, সবসময় -ভালোবাসার এমন উক্তি প্রকাশ করেছেন কবিগুরু।
আমি থাকি তোমার প্রহরী তোমাকে যখন দেখি, তার চেয়ে বেশী দেখি যখন দেখিনা। – সুন্দর এই কথায় ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়। ম্যালানি ক্লার্ক, আইরিশ বলেন, আমরা কোনোভাবেই ভালোবাসার ওপর মূল্য নির্ধারণ করতে পারি না, কিন্তু ভালোবাসার জন্য দরকারি সব উপকরণের ওপর মূল্য নির্ধারণ করতেই হবে।। কেউ যদি তোমার ভালবাসার মূল্য না বুঝে তবে নিজেকে নিঃস্ব ভেব না। জীবনটা এত তুচ্ছ না ‘কোনো কিছুকে ভালোবাসা হলো সেটি বেঁচে থাক তা চাওয়া।’ – কনফুসিয়াস।

জীবন যেন একটা ফুল আর জীবনের ভালোবাসা হলো মধু স্বরূপ – বলেন সেকেনা।
জীবনে দুটো জিনিস খুবই কষ্টদায়ক।। একটি হচ্ছে, যখন তোমার ভালোবাসার মানুষ তোমাকে ভালোবাসে কিন্তু তা তোমাকে বলে না।। আর অপরটি হচ্ছে, যখন তোমার ভালোবাসার মানুষ তোমাকে ভালোবাসে না এবং সেটা তোমাকে সরাসরি বলে দেয়। – ধরুন এই উক্তির জনক কবি সেক্সপিয়ার। এই ধরণের হাজারো উক্তি দিয়ে ভালোবাসার প্রকাশ করেছেন হাজারো কবি। কিন্তু এই ভালোবাসা কবির কবিতায় সাহিত্যিক এর রচনায় ঔপন্যাসিক এর উপন্যাস এই সীমাবন্ধ নয়। ভালোবাসা ছড়িয়ে গেছে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত। সঙ্গীতের রাজ্য ভালোবাসা রাণীর আসনে আছেন। ভালোবাসা ছাড়া সঙ্গীত অচল। সঙ্গীত ভূবন ভালোবাসার পূজারী বলা চলে। ভালোবাসা না হলে সঙ্গীত হতো না। সঙ্গীতের সেই শুরু থেকে আজ পর্যন্ত যত গান সৃষ্টি হয়েছে তা কোন না কোন দিক দিয়ে ভালোবাসার সাথে যুক্ত।

“আমার ঘুম আসেনা রে
একা ঘরে শুইলে
তোমরা নি দেখছো আমার প্রাণ বন্ধুরে!”
কোন এক সময়ের ব্যাপক জনপ্রিয় একটি গান। যেখানে ভালোবাসার মানুষকে গানে গানে খুজে বেড়ান শিল্পী। মনের অনূভূতি গুলো প্রকাশ করেন গানের মাধ্যেমে। এই গানটি এক সময় গ্রামে-গঞ্জে খুব শোনা যেত।

“গাছটা হলো সবুজ বন্ধু ফুলটা হলো লাল
তোমার আমার ভালোবাসা
থাকবে চির কাল বন্ধু
থাকবে চিরকাল।।”
গানগুলোর মধ্যে ফুটে ওঠেছে ভালোবাসার দৃঢ়তা। ভালোবাসার মানুষটাকে সবুজ গাছের সাথে তুলনা করেছেন আর ভালোবাসাকে লাল ফলের সাথে তুলনা করেছেন। এভাবে ভালোবাসার গভীরতা বুজিয়েছেন।

“আমি চির কাল প্রেমরই কাঙ্গাল
যে ডালে বান্ধি বাসা,
ভাঙ্গে সেই ডাল আমার
এমনই কপাল
হায়রে এমনই কপাল।।।
মানুষ ভালোবাসার কাঙ্গাল। সারাটি জীবন মানুষ একটু ভালোবাসা পাবার আশায় থাকে। একটু ভালোবাসা পেলে যেন জীবনকে সার্থক মনে হয়। এই ভালোবাসাকে নিয়েই পৃথিবীতে পথ চলা। সবার প্রতি সবার ভালোবাসা আছে বলেই আজও মানুষ একটি গত্রে একসাথে বসবাস করতে পারে। ‘ভালোবাসা’-এক শব্দের মিষ্টি অভিব্যক্তি। এত সুন্দর আর কোনো শব্দ বোধহয় অভিধানে খুঁজে পাওয়া যাবে না। আর ভালোবাসার সেই মিষ্টি মধুর সময়ে প্রেমিক-প্রেমিকার অনুভূতি নিয়ে যুগে যুগে জন্ম নিয়েছে শত শত গীতিকবিতা। আমাদের বাংলা গানের সুরের ভুবনেও ভালোবাসা এক অনন্য বিষয়বস্তু। বহুগুণী শিল্পীর কাছ থেকে আমরা সময়ে সময়ে পেয়েছি ভালোবাসার গান। যতদিন পৃথিবীর বুকে সঙ্গীত ও সঙ্গীত সৃষ্টির মানুষগুলো থাকবে ভালোবাসা নিয়ে আরো হাজারো গান রচনা হবে। ভালোবাসার বাঁধনে পৃথিবীর সব মানুষ এক সূতোয় বাধা হোক সেই শুভ কামনা।

Related Articles

Leave a reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

18,780FansLike
700SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles